প্রচ্ছদ অর্থনীতি

বাজেটের খরচ বিষয়ে মুহিতকে এক হাত নিলেন সুরঞ্জিত

111347 1বিএ নিউজ: অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের উত্থাপিত ২০১৪-১৫ অর্থবছরের সম্পূরক বাজেট বিবরণের কড়া সমালোচনা করেছেন আওয়ামী লীগের প্রবীণ নেতা সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত।


মঙ্গলবার জাতীয় সংসদে ২০১৪-১৫ অর্থবছরের সম্পূরক বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় তিনি সম্পূরক বাজেটে কোন খাতে টাকা নেয়া হচ্ছে, কেন নেয়া হচ্ছে- সেটার যথাযথ বিরবণ না থাকায় সমালোচনা করেন।


এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অধিবেশন কক্ষে উপস্থিত থাকলেও অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত উপস্থিত ছিলেন না।


সুরঞ্জিত বলেন, ‘আমাদের কি মনে করছে এই পার্লামেন্টে? হোয়াট ইজ থিং? তারপর কি লিখছেন- দুটি চলমান প্রকল্প। কোথাকার প্রকল্প? কি নাম তাদের? বাড়ি কোথায়? কোথা থেকে আইছে? আকাশ না বাতাস? দয়া কইরা বলেন, না বলবেন না।’


তিনি বলেন, ‘অর্থমন্ত্রী লিখেছেন- উন্নয়ন সহায়তা খাতে ব্যয় বৃদ্ধি পাওয়ায় বিশেষ প্রয়োজন। বিশেষ প্রয়োজনটা কি? হোয়াট ইজ দ্য বিশেষ? অনারেবল মিনিস্টার? কাইন্ডলি এক্সপ্লেইন ইট। দে আর থি হানড্রেড মেম্বারস। দে আর পাবলিক রিপ্রেজেন্টিটিভ।’


সুরঞ্জিত বলেন, ‘পরিকল্পনাতে যদি এটা হয়? পরিকল্পনাতে অবশ্যই টাকা যাবে। যদি আমাদের সামর্থ্য থাকে পরিকল্পনায় আমরা আরো চার ডাবল টাকা দিতে চাই। পরিকল্পনায় টাকা দেব না তো দেব কোথায়? কিন্তু আপনি সম্পূরক বাজেট করে নেবেন, আমাকে বলবেন না? পার্লামেন্টকে আপনি আন্ডারগ্রাউন্ড করবেন। পার্লামেন্টকে আপনি বাইপাস করবেন।’


তিনি আরো বলেন, ‘৩২টি মন্ত্রণালয় ২৩,০৫০ কোটি টাকা খরচই করতে পারে নাই। এই সৌভাগ্যবান মন্ত্রীরা কারা? ১ টাকাও খরচ করতে পারেন নাই। হাতই দিতে পারেন নাই। হাতই যদি দিতে না পারেন একা প্রধানমন্ত্রী কি করবে?’


আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের এই সদস্য বলেন, ‘আমি সুস্পষ্টভাবে বলতে চাই- সম্পূরক আর্থিক বিবৃতিতে আপনি (অর্থমন্ত্রী) আমার ভোট নিবেন তো? এইটা তো এই পার্লামেন্টে ভোট ছাড়া পাস হবে না? আমি কিসে ভোট দিব? ভোট দিতে গেলে আপনাকে বলতে হবে এই এই মন্ত্রী, এই এই মন্ত্রণালয়, এই টাকাটা খরচা করতে পারে নাই। কেন পারে নাই, এই কথাটাও আপনাকে বলতে হবে। এই কথাটাই আপনার আর্টিক্যাল ৯১-এ বলেছে।’


তিনি বলেন, ‘যারা বেশি খরচা করেছে, আমি তাদের সম্বন্ধে পরে আসছি। রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ে ‘ওয়ান হান্ডের্ড ইয়ার হিস্ট্রি’ শীর্ষক প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য প্রয়োজন ২২ কোটি টাকা। রাষ্ট্রপতি ভবনের ইতিহাস রাখতে হবে ভালো কথা, রাখেন। এইটা যে একেবারে সাপ্লিমেন্টারি বাজেট কইরে করতে হবে। হোয়াট ইজ দ্য আর্জেন্সি? এইটা তো সাপ্লিমেন্টারি বাজেট হবে, যা পৃথিবীর কোথাও নাই।’


সুরঞ্জিত বলেন, ‘সম্পূরক বাজেটের নিয়মই হচ্ছে, যেসব মন্ত্রণালয় তাদের কাজের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত টাকা খরচ করবে, তা এখানে পাস করে দেয়া। সেটা আমরা সব সদস্য ভোট দিয়ে পাস করি। কিন্তু এটাতে যদি কোনো প্রকার টাকা নেয়ার সঠিক কারণ উল্লেখ করা না থাকে তাহলে আমরা এটি পাস করাতে কিভাবে ভোট দেব, কোথায় ভোট দেব, আর কেনই বা দেব?’


কয়েকটি ব্যাংকের খারাপ অবস্থা উল্লেখ করে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির এই সভাপতি বলেন, ‘এই যে সোনালী ব্যাংকের কেলেঙ্কারি, বেসিক ব্যাংকের জালিয়াতি, শেয়ারবাজারে কেলেঙ্কারি, বিসমিল্লাহ গ্রুপ হাজার হাজার কোটি টাকা নিয়ে গেল। এখানে তো অর্থমন্ত্রীর একটা তদন্ত রিপোর্টও দেখলাম না। এই টাকাগুলো কবে আদায় করা হবে, কিভাবে আদায় হবে, এসব বিষয়ে তো আপনার কোনো মন্তব্য দেখলাম না!’


পরিকল্পণা মন্ত্রণালয়ের বাজেট নিয়ে সুরঞ্জিত বলেন, ‘এই যে পরিকল্পণা মন্ত্রণালয় তাদের কয়েকটি প্রকল্পের কথা বলে টাকা চেয়েছেন। এখানে বলেছেন- একটি চলমান প্রকল্প ও দুটি নতুন প্রকল্পের জন্য অতিরিক্ত এই টাকা প্রয়োজন। কিন্তু এখানে প্রকল্পের নাম, ঠিকানা কিছুই উল্লেখ করা হয়নি। তাহলে আমি এটা পাস করাতে ভোট দিব কিভাবে?’


তিনি বলেন, ‘আমি একটি মন্ত্রণালয়ের একটি প্রকল্পের কথা জানি, যেখানে তারা ৩,০০০ কোটি টাকার একটি টাকাও খরচ করতে পারেনি। আরো কয়েকটি মন্ত্রণালয় আছে যারা ২৩,০০০ কোটি টাকা খরচই করতে পারেনি। আমাকে সবগুলো মন্ত্রণালয়, সবগুলো মন্ত্রীর নাম বলতে হবে। কেন তাদের নাম এখানে প্রকাশ করা হবে না?’


অর্থমন্ত্রীর সমালোচনা করে সুরঞ্জিত বলেন, ‘এখানে নাম দিতে কি আপনাদের লজ্জা করে? আমার ভোট নিতে হলে এখানে আপনাদের নাম দিতে হবে। আমি যে টাকা অথরাইজড করি নাই, আপনি এটা খরচ করেছেন, তাহলে আমি কোথায় ভোট দেব, কিসে ভোট দেব?’


সম্পূরক বাজেট নিয়ে এসব কথা বলতে সুরঞ্জিত সেন গুপ্তকে নির্ধারিত ২০ মিনিটের পরও দুদফায় প্রায় ১০ মিনিট সময় বাড়িয়ে দেয়া হয়।


কেন তিনি এসব কথা বললেন তার ব্যাখ্যায় সুরঞ্জিত জানান, ‘আমি চাই বাজেট নিয়ে সবাই খোলামেলা আলোচনা করুক। বলার একটা অভ্যাস তৈরি হোক। এখানে প্রধানমন্ত্রী আছেন, তিনি অনেক সংস্কার করছেন, আশা করছি এটাও করবেন। তাহলে আর এই সমস্যা থাকবে না।’

Adil Travel Winter Sale 2ndPage

অর্থনীতি : সকল সংবাদ

আজকের এই দিনে
স্মরণ-অবিস্মরণীয়-শহীদ-জিয়া
মোহাম্মদ জয়নাল আবেদীন: একেবারেই অপরিচিত ব্যক্তি শহীদ জিয়াউর রহমান কেবল অসীম দেশপ্রেম, অদম্য ইচ্ছাশক্তি, অকুতোভয় মানসিকতা, উদারহণযোগ্য  সততা, সর্বোপরি বাংলাদেশের...