প্রচ্ছদ অর্থনীতি

যুক্তরাষ্ট্র সুদের হার বাড়াতে পারে ডিসেম্বরে

আগামী ডিসেম্বর মাসে যুক্তরাষ্ট্রে সুদের হার বাড়তে পরে। দীর্ঘদিন ধরেই দেশটির সুদের হার বাড়ার বিষয়টি আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছে। তবে অর্থনৈতিক নানা সংকটের কারণে সুদের হার বাড়ানোর বিষয়টি কার্যকর হয়নি।২০০৮ সালের ডিসেম্বর থেকে দেশটির সুদের হার হচ্ছে প্রায় শূন্য। 1431157193অর্থাৎ কোনো সুদ ছাড়াই ব্যাংকগুলো ফেডারেল রিজার্ভ থেকে অর্থ ধার নিতে পারছে। যে হারে ব্যাংকগুলোকে ধার দেওয়া হয় তাকে ‘ফেডারেল ফান্ডস রেট’ বলা হয়। ২০০৮ সালে বিশ্বব্যাপী অর্থনৈতিক মন্দা দেখা দিলে সুদের হার শূন্যে নামিয়ে আনে ফেডারেল রিজার্ভ। ৭ বছর পর সুদের হার বাড়ানোর বিষয়টি বড় ধরনের অর্থনৈতিক ইস্যু হিসেবে দেখা দিয়েছে।এমন পরিস্থিতিতে আগামী ডিসেম্বর মাসে সুদের হার বাড়ার যথেষ্ট সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন সেদেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর জেনেট ইয়েলেন। কংগ্রেসম্যানদের সঙ্গে অনুষ্ঠিত বৈঠকে তিনি বলেন, ‘আগামীতে আমরা যে সব তথ্য উপাত্ত পাব সেগুলো যদি অনুকূলে থাকে তাহলে আগামী ডিসেম্বরেই সুদের হার বাড়ার যথেষ্ট সম্ভাবনা রয়েছে।’গত সেপ্টেম্বর মাসেই সুদের হার বাড়তে পারে বলে ইঙ্গিত করে গভর্নর বলেছিলেন, ‘চলতি বছরের শেষ দিকে সুদের হার বাড়ানোর বিষয়টি উপযুক্ত হবে।’ তার এ ঘোষণার পর পরই দেশটির অর্থনীতিবিদদের মধ্যে সুদের হার বাড়ানোর বিষয়টি নিয়ে ব্যাপক আলোচনা তৈরি হয়। সুদের হার শিগগিরই বাড়ানোর পক্ষে অনেকে মত দিয়েছেন আবার কেউ মত দিয়েছেন আরও বিলম্ব করার পক্ষে।অনেকেই ধারণা করেছিলেন অক্টোবর মাসে নীতি নির্ধারকদের বৈঠকে সুদের হার বাড়ানোর বিষয়ে ঘোষণা দেবে ফেডারেল রিজার্ভ। কিন্তু বেশিরভাগ সদস্যই বিপক্ষে থাকায় সুদের হার বাড়েনি। আগামী ডিসেম্বর মাসে নীতি নির্ধারকের ফের বৈঠক বসছে। আর এ বৈঠকেই সুদের হার বাড়তে পারে।

Adil Travel Winter Sale 2ndPage

অর্থনীতি : সকল সংবাদ

আজকের এই দিনে
স্মরণ-অবিস্মরণীয়-শহীদ-জিয়া
মোহাম্মদ জয়নাল আবেদীন: একেবারেই অপরিচিত ব্যক্তি শহীদ জিয়াউর রহমান কেবল অসীম দেশপ্রেম, অদম্য ইচ্ছাশক্তি, অকুতোভয় মানসিকতা, উদারহণযোগ্য  সততা, সর্বোপরি বাংলাদেশের...