প্রচ্ছদ প্রযুক্তি

সৌরশক্তি চালিত বিমান সোলার ইম্পালসের সফল মিশন


:: ইশানা ইশরাত ::

গোটা সৌরজগত টিকে আছে সূর্যের আলোর উপর, আর নিছক একটা বিমান উড়বে না কেন সৌরশক্তিতে। বলাটা সহজ, কিন্তু বাস্তবায়ন করতে লেগে গেছে দীর্ঘ ৬টি বছর।

দীর্ঘ ছয় বছরের গবেষণা আর পরীক্ষা-নিরীক্ষার অবশেষে সফল হলো সৌরশক্তি চালিত বিমান সোলার ইম্পালসের মিশন। সুইস উদ্ভাবক বের্টরেন্ড পিকার্ড ও এন্ড্রি বোর্সবার্গ উদ্ভাবিত সৌরশক্তি চালিত বিমানটি গত ৭ জুলাই আমেরিরকা ট্যুর শেষ করে অবতরণ করেছে নিউইয়র্কের জন এফ কেনেডি বিমানবন্দরে। দুই উদ্ভাবকই ছিলেন সোলার ইম্পালসের প্রধান পাইলট, সহযোগীরা ক্রু হিসেব তাদের পাশে ছিল।

অ্যাভিয়েশনের ইন্ডাস্ট্রির ইতিহাসে কোনো জ্বালানী ব্যবহার না করেই প্রথম সৌরশক্তি চালিত বিমান হিসেবে সোলার ইম্পালস দিন ও রাতে সমানভাবে উড্ডয়ন করে আমেরিকার পূর্ব উপকূল থেকে সফলভাবে নিউইয়র্ক পৌছায়।

আমেরিকার সানফ্রান্সিসকো থেকে গত ৩ মে সৌরশক্তি চালিত বিমানটি যাত্রা শুরু করে। গন্তব্যে পৌছার আগে সোলার ইম্পালস ফিনিক্স,ডালাস ফোর্ট,সেন্ট লুই,সিনসিনাটি ও ওয়াশিংটন ডিসিতে যাত্রাবিরতি করে। ১০৫ ঘন্টা উড্ডয়নকালে সোলার ইম্পালস মোট ৫,৫৩০ কি.মি. পথ পাড়ি দেয় এবং এর গড় গতি ছিল ঘন্টায় ৫৩.৩৪ কিমি । দুইজন পাইলটই পালা করে বিমানটি চালিয়েছেন।

আমেরিকা ট্যুর সফলভাবে শেষ করার পর দুই সুইস উদ্ভাবক আরো ব্যাপক পরিসরে যাত্রা শুরুর পরিকল্পনা করছে। পাশাপাশি প্রস্তুতি নিয়েছে বড় আকৃতির এয়ারক্রাফট নির্মাণের।

তবে ওয়াশিংটন ডিসি থেকে নিউইয়র্কে আসার সময় বিমানটির বাম পাখার নিচের উপরিভাগের ফেব্রিকে আট ফুট লম্বা ক্ষত সৃষ্টি হয় । এসময় হেলিকপ্টার থেকে পর্যবেক্ষণ করে দেখা যায় যে ক্ষত তেমন গুরুতর না ফলে সোলার ইম্পালস তার যাত্রা অব্যাহত রাখে।

কোনো ধরনের জ্বালানী ছাড়া বায়ু দূষণমুক্ত পরিবেশ-বান্ধব সৌরশক্তি চালিত বিমান সোলার ইম্পালস খুলে দিয়েছে এভিয়েশন শিল্পে সম্ভাবনার নতুন জানালা।

বিএইচ

Adil Travel Winter Sale 2ndPage

প্রযুক্তি : সকল সংবাদ

আজকের এই দিনে
স্মরণ-অবিস্মরণীয়-শহীদ-জিয়া
মোহাম্মদ জয়নাল আবেদীন: একেবারেই অপরিচিত ব্যক্তি শহীদ জিয়াউর রহমান কেবল অসীম দেশপ্রেম, অদম্য ইচ্ছাশক্তি, অকুতোভয় মানসিকতা, উদারহণযোগ্য  সততা, সর্বোপরি বাংলাদেশের...