প্রচ্ছদবাংলাদেশ

ইনুর সহী ফতোয়া: হাসনিার সাথে বগেম জয়িার তুলনা হয় না

মোহাম্মদ জয়নাল আবদেীন: সাবকে তথ্যমন্ত্রী নাজমুল হুদার কথা অনকেরেই মনে থাকার কথা। বফোঁস ও বাজে কথা বলার জন্য এক সময় তাকে বহেুদা বলা হতো।  অনকেই মনে করনে চষ্টো-তদবরি এবং অনুনয়-বনিয়রে পর তথ্যমন্ত্রী হয়ে হাসানুল হক ইনু অযথা বাক-পটুতায় এবং বাজে শব্দ প্রয়োগে নাজমুল হুদাকওে ছাড়য়িে গছেনে। শখে হাসনিাকে খুশি করে তার নকে-নজরে থাকতে চাটুকারতিার পাশাপাশি ইনু প্রায়ই অবান্তরভাবে বগেম খালদোর বরিুদ্ধে উস্কানীমূলক কটূবাক্য  ব্যবহার করনে। এ ধরনরে র্অবাচীনমূলক বক্তব্যরে মূল উদ্দশ্যে শখে হাসনিাকে খুশি করা। কন্তিু ১৬ নভম্বের ঢাকা’র সংবাদ সংস্থা ‘ইউএনব’ি র্কাযালয়ে একটি অনুষ্ঠান উদ্বোধনকালে ইনু হঠাৎ বগেম খালদো জয়িাকে হয়ে করতে দয়িে তনিি যে বাক্য ব্যবহার করছেনে, তাকে আমি খালদোর সপক্ষে অতি বাস্তব ও ঐতহিাসকি মন্তব্য বলে মনে কর।ি ইনু বলছেনে, শখে হাসনিা আর খালদো জয়িাকে এক পাল্লায় মাপবনে না ।
এমন সহী কথা ইনুর মুখ দয়িে বরে হবে  - তা ভাবাই যায় না। এ ধরনরে সহী মন্তব্যরে জন্য ইনুকে ধন্যবাদ দতিইে হয়। শখে হাসনিার মতো খালদো জয়িা সুবধিা মতো কথা পাল্টান না। প্রথম দফা প্রধানমন্ত্রী হবার পর শখে হাসনিা বলছেলিনে তার বয়স ৫৬ বছর হলে তনিি রাজনীতি হতে অবসর নবিনে। এখন তার বয়স ৭০ বছর ছাড়য়িে গছে।ে মনে হচ্ছে আমৃত্যু রাজনীতি করবনে। র্অথাৎ নজিইে নজিরে ঘোষণাকে মথ্যিে প্রমাণ করছেনে।
১৯৯২ সালে বগেম জয়িার নতেৃত্বে বএিনপি সরকার গঠতি হবার প্রসেডিন্টে নর্বিাচনে আওয়ামী লীগ র্প্রাথী বচিারপতি বজলুল হায়দার চৌধুরীকে সর্মথন করার জন্য শখে হাসনিা জামায়াতরে তৎকালীন আমীর অধ্যাপক গোলাম আজমরে শরণাপন্ন হন। গোলাম আজমরে দোয়া কামনা করনে। বগেম জয়িা কখনোই তমেন ভূমকিায় অবর্তীণ হন ন।ি শখে হাসনিা গোলাম আজমরে তত্ত্বাবধায়ক থওিরী গ্রহণ করে জামায়াতকে সাথে নয়িে তত্তাবধায়ক সরকার প্রতষ্ঠিার দাবতিে হরতাল অবরোধসহ আইনবরিোধী পন্থায় সরকারী র্কমর্কতা-র্কমচারীদরেকে দয়িে জনতার মঞ্চরে নামে দশে অচল করে দয়োর উদ্যোগ ননে। শখে হাসনিার দাবি অনুযায়ী নর্বিাচনে  তত্তাবধায়ক সরকার ব্যবস্থার দাবি বগেম জয়িা মনেে নয়িে শাসনতন্ত্ররে অর্নুভূক্ত করা হলওে ২০০৮ সালে ক্ষমতায় এসে শখে হাসনিা বচিারপতকিে ব্যবহার করে তত্তাবধায়ক সরকার ব্যবস্থাকে অবধৈ ঘোষণা করালনে।  বগেম জয়িা কখনোই এ ধরনরে দ্বচিারতিা কংিবা ডগিবাজমিূলক ভূমকিায় অবর্তীণ হন ন।ি
মুন সনিমো হলরে মালকিানা নয়িে দায়রে করা মামলার রায়ে দয়িে গয়িে শখে হাসনিার নর্দিশেে সর্ম্পূণ অপ্রাসঙ্গকি পন্থায় সংবধিানরে পঞ্চম সংশোধনী বাতলি ৭৫-পরর্বতী সব শাসক ও আইনকে অবধৈ ঘোষণা করলে শখে হাসনিা তৎকালীন প্রধান বচিারপতকিে অভনিন্দন জানান। রায়টি বাস্তবায়নরে উদ্যোগ নয়ে। কন্তিু প্রধান বচিারপতি এস কে সনিহা সংবধিানরে ষোড়শ সংশোধনী বাতলি ঘোষণা করলে তাকে যারপরনাই অপমান করা হয়। তনিি অসুস্থ না হলওে জোরর্পূবক ছুটরি নামে দশে থকেে তাড়য়িে দয়ো হয়। তার বরিুদ্ধে নানা ধরনরে অভযিোগ আনা হয়।
প্রথম দফা প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন দায়ত্বিহীন ও বফোঁস বক্তব্যরে জন্য র্সবােচ্চ আদালত থকেে শখে হাসনিাকে রং-হডেডে লডেি হসিবেে অভহিতি করা হয়। শখে হাসনিা সরকাররে পছন্দমতো রায় প্রদান না করায় হাইর্কোট অঙ্গনে বস্তীবাসীদরেকে ঢুকয়িে দয়ো হয়। হাইর্কোটরে সামনে লাঠমিছিলি করা হয় এবং তৎকালীন পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রকাশ্যে ঘোষণা দয়িছেলিনে য,ে লাঠি কোথায় মারতে হয় আওয়ামী লীগ তা জান।ে
দ্বতিীয় দফা ক্ষমতা দখলরে পর শখে হাসনিা বচিার বভিাগকে সর্ম্পূণ দলীয় প্রতষ্ঠিানে রূপান্তর করনে । নজিরে এবং দলরে নতোর্কমীদরে বরিুদ্ধে রুজুকৃত খুনরে মামলাসহ সাড়ে আট হাজাররে মতো মামলা প্রত্যাহার করে নজিদেরেকে ধোয়া তুলসী পাতা হসিবেে জাহরি করার উদ্ভট পন্থা গ্রহণ করলনে। আর বগেম খালদো জয়িাসহ বরিোধীদলরে নতোর্কমীদরে বরিুদ্ধে হাজার হাজার মথ্যিা মামলা দায়রে করা হয়। এসবই শখে হাসনিার সুবধিাবাদী অপর্কম ঢাকার কারসার।ি
শখে হাসনিার মতো বগেম জয়িা বচিার বভিাগসহ প্রশাসনরে র্সবত্র দলীয় ক্যাডারদরেকে নয়িোগ দনে ন।ি দলীয় ক্যাডারকে বচিারাধীন খুনরে মামলার এক নম্বর আসামীকে হাইর্কোটরে  বচিারপতরি পদে বসান ন।ি ফাঁসরি দন্ডাদশেপ্রাপ্ত ২০ আসামীকে দলীয় ববিচেনায় ক্ষমার মাধ্যমে দন্ডাদশেে পুরোপুরি মওকুফ করনে ন।ি
অন্যায্য দাবি আদায়রে নামে হারতাল, রাস্তাঘাট অবরোধ, যানবাহন ধ্বংস, শল্পিকারখানায় অগ্নসিংযোগসহ সারা দশেকে অচল করে  শখে হাসনিা দলীয় ক্যাডারদরেকে লগ-িবঠৈাসহ ঢাকায় আগমনরে নর্দিশে দনে। এককালরে পয়োরে দোস্ত জামায়াতে ইসলামীর একবোরে নর্দিােষ অনুসারীকে নর্দিয়ভাবে লগÑিবঠৈা দয়িে প্রকাশ্যে পটিয়িে করা হয়। খালদো জয়িার এমন কালমিালপ্তি নর্মিমতার রর্কেড নইে।
বগেম জয়িা প্রধানমন্ত্রীর আসনে বসে কখনোই বহুরূপী সাজনে ন।ি খালদো জয়িা শখে হাসনিার মতো কখনো গান গানন।ি কখনো কাঁদনে ন,ি আবার কখনো হাসতে হাসতে লুট-িপুটি খান ন।ি কখনো তঁেতুল হুজুরদরে অজানা সংখ্যক ঘুমন্ত অনুসারীকে সড়ক বাতি নবিয়িে হত্যা করনে ন,ি আবার তঁেতুল হুজুররে কাছে গয়িে আত্মসর্মপন করনে ন।ি হাইর্কোটরে সামনে র্মূতি বসয়িে আবার র্মূত-িবরিোধী বক্তব্য দয়িে জাতকিে বস্মিতিও করনে ন।ি হন্দিু-দবেী গজে চড়ে এসছেে  (?) বলে দশেে বশেি ধান জন্মছেে এমন র্অবাচীন মন্তব্যও খালদো জয়িার মুখে শোনা যায় ন।ি
শখে হাসনিা হরতাল-অবরোধ করে ১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় এসে হাসনিা সংসদে দাঁড়য়িে হরতালরে ক্ষতকিারক দকিগুলো তুলে ধরে বএিনপ’ির ডাকা হরতালরে নন্দিা করনে এবং বলনে আওয়ামী লীগ আর কখনোই হরতাল করবে না, এমনকি বরিোধী দলে গলেওে নয়। অথচ জাতকিে হতবাক করে ২০০১ সালে নর্বিাচনে পরাজতি হয়ে শখে হাসনিা ১৭৩ দনি হরতাল করে নজিে পুনরায় অসত্যবাদী হসিবেে প্রমাণ করলনে । র্অথাৎ শখে হাসনিা তার সুবধিামাফকি তার সুর পাল্টান।
হরতাল-অবরোধরে নামে ঢাকাসহ সারা দশেকে অচল করে দয়ো হলওে খালদো জয়িা কখনোই শখে হাসনিার বাসা কংিবা অফসিরে সামনে বালরি ট্রাক ইটরে ট্রাক দয়িে প্রতবিন্ধকতা তরৈি করে ন।ি পুলশি বস্টেনী দয়িে শখে হাসনিাকে অঘোষতি গৃহবন্দি করনে ন।ি শখে হাসনিাকে তার বাসগৃহ হতে একবোরে বআেইনীভাবে উচ্ছদেও করে ন।ি
ডগিবাজতিে শখে হাসনিা অবশ্যই র্সবশ্রষ্ঠে। স্বরৈাচারী এরশাদরে অধীনে যে নর্বিাচন করবে সে জাতীয় বঈেমান হবে এমন ঘোষণা দয়িে শখে হাসনিা নজিইে এরশাদরে অধীনে নর্বিাচন অংশ ননে। আর বগেম জয়িা সে নর্বিাচন র্বজন করনে। জাতীয় বঈেমানে কে শখে হাসনিা তা নজিইে প্রমাণ করছেনে । আবার ২০১৪ সালরে ভুয়া নর্বিাচনে সইে স্বরৈাচারী এরশাদকইে ঘুষ দয়িে প্রহসনরে নর্বিাচনে  নাময়িছেনে।
খালদো জয়িা গণতন্ত্রকে নর্বিাচনকে প্রহসনে পরণিত করনে ন।ি সরকাররে সমালোচক সংবাদপত্র কংিবা টভিি চ্যানলে বন্ধ করে দনে ন।ি  সাংবাদকিদরেকে গণহারে নর্যিাতন ও কারারুদ্ধ করনে ন।ি বাইরে কংিবা নজিগৃহে সাংবাদকি দম্পতকিে হত্যা করা হয় ন।ি  বনিাভোটে ৩০০জন এমপরি মধ্যে বনিাভোটে ১৫৪জনকে বনিা প্রতদ্বিন্ধতিায় নর্বিাচতি করে ভোট ছাড়াই সরকার গঠনরে অগ্রমি ব্যবস্থা করনে ন।ি বাকি ১৪৪ আসনে কোনটতিইে ২০ শতাংশ ভোটার ভোট দনে ন।ি কোন কোন ভোটকন্দ্রেে একজন ভোটারও  যান ন।ি খালদো জয়িা গণতন্ত্ররে নামে একব্যক্তরি স্বরৈশাসন দশেে চালু করনে ন।ি শখে হাসনিা গণতন্ত্ররে নামে দশেে অঘোষতি একদলীয় একব্যক্তরি শাসন চাপয়িে দয়িছেনে।
খালদো জয়িা কখনো দশে থকেে পালয়িে যান নি । ভারতে কংিবা অন্যদশেে তথাকথতি স্বচ্চোনর্বিাসনরে নামে বদিশেীদরে র্অথে পোষতি হন ন।ি মঈন ফখরুদ্দনিরে উত্থানরে সড়ক তরৈি করনে ন।ি ঢাকা শহরে লগ-িবঠৈা আননে ন।ি ফখরুদ্দনিরে শপথানুষ্ঠানে খালদো জয়িা অংশ গ্রহণ করনে ন।ি গণভবনে হাসনিার মতো হাসরি রোল তোলনে ন।ি খালদো জয়িা কখনো বলনে নি এ সরকার আমাদরে আন্দোলনরে ফসল, এ সরকারকে সফল করা আমাদরে দায়ত্বি, এ সরকাররে প্রতটিি কাজ ও র্কমসুচকিে আমরা সর্মথন  করবো কংিবা মনেে নবে। এসবই শখে হাসনিার উক্ত।ি
বগেম জয়িা কখনোই জনসভায় বা ঘরোয়া আলোচনায় সর্ম্পূণ অপ্রাসঙ্গকিভাবে শখে হাসনিা কংিবা অন্যকোন নতোর বরিুদ্ধে তুচ্ছ-তাচ্ছল্যিমূলক অপমানজনক কথা  বলনে না, যমেনটি শখে হাসনিা খালদো জয়িার বরিুদ্ধে অহরহ বলে থাকনে।
অন্যদকিে ভারত কখনোই বলে নি য,ে ভারত খালদো জয়িাকে বাংলাদশেরে ক্ষমতা দখেতে চায় কংিবা এমনও বলে নি য,ে ভারত যসেব সুযোগ-সুবধিা বাংলাদশে থকেে লুটে নয়িছেে সগেুলো ধরে রাখতে হলে খালদো জয়িাকে আরো একবার ক্ষমতায় আনতে হব।ে শখে হাসনিার মতো খালদো জয়িা কখনোই বদিশেে গয়িে আশ্রয় ননে ন।ি কখনোই বদিশেীদরে সহযোগতিায় ক্ষমতায় আসনে ন।ি শখে হাসনিার ক্ষমতায় রাখার জন্য ভারতই প্রকাশ্যে একহাজার কোটি টাকা বাজটে করছে,ে আর গোপনে কতো টাকা ব্যয় করছে,ে সে খবর কউে জানে না। ভারত প্রকাশ্যে বলছেে ভারত শখে হাসনিাকে বাংলাদশেে ক্ষমতায় দখেতে চায়। এতে বুঝা যায় শখে হাসনিা বাংলাদশেরে জনগণরে ইচ্ছায় নয়, বরং ভারতরে সহযোগতিায় ভারতরে র্স্বাথে ক্ষমতায় আসনে, ক্ষমতায় থাকনে।  এর মানে হলো শখে হাসনিা ক্ষমতায় থাকার বনিমিয়ে বাংলাদশেে ভারতরে র্স্বাথ রক্ষা করনে, বাংলাদশেরে নয়। আর খালদো জয়িা বলনে: বদিশেে আমাদরে বন্ধু আছ,ে প্রভু নইে।
প্রভু ভারতরে নর্দিশেইে শখে হাসনিা সমুদ্রসীমা নর্ধিারণ করার আবরণে নদী-এলাকায় অবস্থতি আমাদরে দশেরে অবচ্ছিদ্যে অংশ তালপট্টি দ্বীপ ভারতরে কাছে হস্তান্তর করছেনে। আর্ন্তজাতকি নদীর পানি ট্রানজটি একচটেয়িা ব্যবসা এবং প্রকাশ্য ও গোপন চুক্তরি বাংলাদশেকে ভারতরে আশ্রতি রাজ্যে পরণিত করছেনে। এসব ক্ষত্রেে বগেম জয়িার কোন ভূমকিা নইে। এগুলো তথাকথতি স্বাধীনতার সপক্ষরে শক্তি শখে হাসনিার দশেবরিোধী  কাজরে অংশ বশিষে । বাংলাদশেকে সবদকি থকেে শষে করতে হলে শখে হাসনিাকে বারবার ক্ষমতায় রাখতে তাই ভারত মরয়িা।
দশেজুড়ে বভিন্নি অজুহাতে খুন-অপহরণ, গুম, বডিআির বদ্রিোহরে নামে নর্বিচিারে সনো র্কমর্কতা হত্যা, ব্যাংক, শয়োর বাজার, রজর্িাভ চুরতিে বগেম জয়িার কোন ভূমকিা নইে। তার সময় দশেরে র্অথ এভাবে বদিশেে পাচার হয় ন।ি দশেরে আগা থকেে গোড়া র্পযন্ত চোর আর ঘুষখোরে ভরে যায় ন।ি কন্দ্রেীয় ব্যাংকে আগুন জ্বলে ন।ি দশেরে মানুষ এমন নরিাপত্তাহীনতায় অসহায়ত্বরে মধ্যে দনিাতপিাত করনে ন।ি বাংলাদশে এমন নতেৃত্বহীনতায় ভোগে ন।ি দশেরে সবকছিু দশেরে বাহরি থকেে নর্ধিারতি হয় দশেবাসী এখন আর দশেরে মালকি নন। দশেরে এমন র্দুদশার জন্য বগেম জয়িার সামান্যতম ভূমকিা নইে। 
বশ্লিষেণ করতে দখো ইনু তার অজান্তইে বগেম জয়িা যে শখে হাসনিার সাথে কোনভাবে তুলনীয় নয় তা স্বীকার করছেনে। তনিি বলনে, শখে হাসনিার সাথে বগেম জয়িাকে তুলনা করা যাবে না। আমরাও অন্ততঃ এ ক্ষত্রেে ইনু সাথে একমত।*
লখেক: সাংবাদকি ও গবষেক

Adil Travel Winter Sale 2ndPage

বাংলাদেশ : সকল সংবাদ

আজকের এই দিনে
স্মরণ-অবিস্মরণীয়-শহীদ-জিয়া
মোহাম্মদ জয়নাল আবেদীন: একেবারেই অপরিচিত ব্যক্তি শহীদ জিয়াউর রহমান কেবল অসীম দেশপ্রেম, অদম্য ইচ্ছাশক্তি, অকুতোভয় মানসিকতা, উদারহণযোগ্য  সততা, সর্বোপরি বাংলাদেশের...