প্রচ্ছদবাংলাদেশ

চট্টগ্রাম সমিতির দুইগ্রুপে মারামারি হাজীযাত্রীদের দোয়া অনুষ্ঠান পুন্ড, দুইজন হাসপাতালে

ssssssনিউইর্য়ক:(বিএনিউজ): চিটাগাং এসোসিয়েশন অব নর্থ আমেরিকা ইনকের সদস্যদের দুই গ্রুপের মারামারিতে হাজীযাত্রীদের জন্য আয়োজিত দোয়া অনুষ্ঠান পুন্ড এবং দুইজন হাসপাতালে। গত ৩১ জুলাই সোমবার আনুমানিক রাত সাড়ে ৮ টার সময় ব্রকলীনের চট্টগ্রাম সমিতির ভবনে মারামারির ঘটনা ঘটে। এদের সবাই চট্টগামের অধিবাসী এবং সমিতির সাবেক-বর্তমান কর্মকর্তা ও সদস্য। সূত্র জানায়, চিটাগাং সমিতির সম্প্রতি নির্বাচন, কমিটি, পাল্টা কমিটির দ্বন্দ্ব নিয়ে এমন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘঠেছে। ঐ দিন বিকালে সমিতির ভবনে (জিয়া-সেলিম) গ্রুপের আহবানে হাজীযাত্রীদের জন্য দোয়া ও বনভোজন-২০১৭ এর মতবিনিময় সভা ছিল। প্রতোক্ষদর্শীরা জানান, রাত সাড়ে ৮টার দিকে (জাহাঙ্গীর-বিল্লাহ) গ্রুপের কয়েকজন সদস্য হলরুমে প্রবেশ করেন। হলরুমে ডুকেই তারা জিয়া-সেলিমকে দোষারোপ করে বলতে থাকে আমাদের বনভোজনের ব্যানার কে ছিঁেড়ছে, এ কমিটি অবৈধ, অবৈধরা কোন অনুষ্ঠান করার সুযোগ নেই ইত্যাদি, ইত্যাদি। এর এক পর্যায়ে জিয়া-সেলিম গ্রুপ এবং জাহাঙ্গীর-বিল্লাহ গ্রুপের মধ্যে তর্ক-বিতর্ক বেধেঁ যায়। এভাবে তর্ক-বির্তক, কিল-ঘুষি চলে প্রায় এক ঘন্টা। এ সময়ে কে বা কারা পুলিশ কল করলে তাৎক্ষনিকভাবে ঘটনার স্থলে পুলিশ এসে সবাইকে বের করে দেয়। এর মধ্যে জাহাঙ্গীর-বিল্লাহ গ্রুপের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম এবং জিয়া-সেলিম গ্রুপের সহ সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন চৌধুরী স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। দুই গ্রুপের মারামারি পুর্ব পরিকল্পিত এবং সমিতির কার্যত্রুম থেকে বিরত রাখার জন্য হয়েছে বলে সূত্র জানায়। জিয়া-সেলিম গ্রুপের সাধারণ মোহাম্মদ সেলিম বিএনিউজকে জানান, প্রতি বছর পবিত্র হজ্বের উদ্দেশ্যে যারা ক্বাবায় যাবে, তাদের জন্য দোয়ার অনুষ্ঠানের আয়োজন করে থাকে চট্টগ্রাম সমিতি। হাজীযাত্রীদের জন্য দোয়া ও বনভোজন-২০১৭ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে মতবিনিময় সভা পূর্বে থেকে নির্ধারিত ছিল। আমাদের বিপক্ষের অর্থাৎ নির্বাচন ও মামলায় পরাজিত শক্তি তারা পরিকল্পিতভাবে আমাদের সভাকে পুন্ড করার জন্য হামলা করবে আমাদের জানাই ছিলনা। হজ্জ্বযাত্রীদের ctgvvvদোয়া অনুষ্ঠানে সদস্যদের মত উপস্থিত হয়ে হঠাৎ হামলা কোন সভ্য সমাজে হতে পারে না। তিনি বলেন, তাদের হামলায় আমাদের সহ সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন চৌধুরী খোকনসহ কয়েকজন মারাক্তভাবে আহত হয়েছে। মহিউদ্দিনের হাড় ভেঙ্গে গেছে। সারারাত চিকিৎসা নেওয়ার পর তিনি এখন বাসায় বিশ্রামে আছে। তিনি বলেন, আমাদের বিপক্ষের গ্রুপ সম্প্রতি নির্বাচনে অংশ নিয়ে, আবার নিজে নিজে প্রত্যাহার করেছে। এখন আবার নিজেদেরকে সমিতির কর্মকর্তা দাবি করে। ইতিমধ্যে সমিতির বিরুদ্ধে মামলা করে তারা পরাজিত হয়েছে। আজকে হজ্বযাত্রীদের দোয়া অনুষ্ঠানে হামলা করে প্রমাণ করেছে সমিতির কার্যত্রুমকে তারা বাধাঁ সৃষ্টি করতে চায়। তিনি বলেন, সমিতির কার্যত্রুম গতানুগতি চলবে। ইতিমধ্যে হামলাকারীদের বিরুদ্ধে আঘাতপ্রাপ্ত মহিউদ্দিন চৌধুরী মামলা করেছে। এখন এর ফয়সালা হবে কোটে। অপর দিকে জাহাঙ্গীর-বিল্লাহ গ্রুপের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম জানান, দোয়া অনুষ্ঠান ও মতবিনিময় সভা সকল সদস্যের মত আমরাও যাচ্ছিলাম। আমাদের উপস্থিতির ভয়ে মোহাম্মদ সেলিম পূর্ব থেকে পুলিশ এনে রেখেছে। আমরা অফিসে ডুকতেই তারা উপস্থিত পুলিশকে বলতে থাকে এরা সদস্য নয়। তারা অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার সুযোগ নেই। তখন পুলিশ যাচাই করে দেখে আমাদের সকলেই সমিতির সদস্য। তখন পুলিশ আমাদেরকে প্রবেশের অনুমতি দিয়ে চলে যায়। অনুষ্ঠানে সকল সদস্যের মত আমিসহ আরো কয়েকজন হলরুমে প্রবেশ করলে তারা আমাদের আবার বাঁধা দেয়। এর এক পর্যায়ে তর্কে লিপ্ত হয় এবং অনুষ্ঠান থেকে চলে যাওয়ার জন্য চিৎকার দিতে থাকে। জাহাঙ্গীর বলেন, আমি লোকদেরকে ঠেকানোর চেষ্টা করছিলাম। সকলের হস্তাদস্তিতে হঠাৎ আমার শরীর খারাপ লাগছিল। আমি হাডের রোগি। তাই তারাতাড়ি স্থানীয় হাসপাতালে যাই এবং প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাসায় ফিরে আসি। তিনি বলেন, মতবিনিময় সভা সকলের জন্য উম্মুক্ত। আমরা গিয়েছিলাম সকলের সাথে কুশল বিনিময় হবে। কিন্তু তারা আমাদেরকে ভয় পেয়ে এমন অপ্রীতিকর পরিস্থিতি তৈরী করেছে, তা সত্যি দু:খ জনক। তিনি বলেন, আমাদেরকে ফাঁসানোর জন্য মহিউদ্দিন খোকন নামে একজন হঠাৎ নিজেই তার জামা কাপড় খোলে পেলে এবং তাকে বেধড় পিঠায়েছে এমন বান ধরে পুলিশকে অভিযোগ করে। পুলিশ তার কোন কথা আমলে নেয়নি। 
সমিতির সদস্যদের অনেকে জানান, দোয়া অনুষ্ঠানে সাবেক-বর্তমান কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে মারামারি এটা অবৈধ নির্বাচনের ফসল। তবে হজ্বযাত্রীদের দোয়া অনুষ্ঠানে কেন তারা মারামারি করলো আমাদের জানা নেই। 
Adil Travel Winter Sale 2ndPage

বাংলাদেশ : সকল সংবাদ

আজকের এই দিনে
স্মরণ-অবিস্মরণীয়-শহীদ-জিয়া
মোহাম্মদ জয়নাল আবেদীন: একেবারেই অপরিচিত ব্যক্তি শহীদ জিয়াউর রহমান কেবল অসীম দেশপ্রেম, অদম্য ইচ্ছাশক্তি, অকুতোভয় মানসিকতা, উদারহণযোগ্য  সততা, সর্বোপরি বাংলাদেশের...